বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৮:১৬ অপরাহ্ন

বায়ুদূষণে বছরে একজনের চিকিৎসা ব্যয় চার হাজার টাকা : সিপিডি

আরব-বাংলা রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ১:১০ pm

বায়ুদূষণের ফলে চিকিৎসায় একজন মানুষকে বছরে চার হাজার টাকা খরচ করতে হচ্ছে। আজ বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে ‘সবুজ নগরীর জন্য দূষণ হ্রাস’ শীর্ষক সংলাপের মূল প্রবন্ধে এ কথা জানানো হয়। এ সংক্রান্ত একটি প্রেজেন্টশন উপস্থাপন করে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার। সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুনের সঞ্চালনায় গবেষণাপত্র উপস্থাপনা করেন সিনিয়র রিসার্চ ফেলো সৈয়দ ইউসুফ সাদাত।

উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার বলেন, ‘সড়ক তৈরিতে প্রধানমন্ত্রীকে ধোকা দিয়ে ফাইল পাস করে গাছকাটা হয়। প্রধানমন্ত্রী এখন বুঝে গেছেন। কোনো ফাইল এলেই সেই প্রকল্পে গাছকাটা হচ্ছে কি না, পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে কি না, তা যাচাই করে পাস করেন। পরিবেশে সম্মত নয়, এমন অনেক ফাইল ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি।’

উপমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমাদের আইন অনেক আছে, কিন্তু বাস্তবায়নের দিকে মনোযোগ নেই। এটা শুধু পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়, সব ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। আমাদের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে হবে। শ্রদ্ধাশীল না হলে অনেক মত ও পথ থাকলেও লক্ষ্য পূরণ হচ্ছে না। পরিবেশের উন্নয়নে আগে মানুষকে সচেতন হতে হবে। সচেতন না হলে গোলটেবিলে পরিবেশ রক্ষার কথা বলে বাসায় গিয়ে পরিবেশ দূষণে পলিথিন ব্যবহার করবে।’

সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহামিদা খাতুন বলেন, ‘আমাদের অর্থনৈতিক উন্নতি হয়েছে বটে, কিন্তু তা হচ্ছে পরিবেশকে ধ্বংস করে। পরিবেশ না বাঁচিয়ে উন্নয়ন করলে সে উন্নয়ন টেকসই হবে না।’

বক্তারা জানান, পরিবেশ দূষণের প্রধান দুটি উৎস হলো বায়ু ও পলিথিন। এছাড়া নির্মাণ, যানবাহন, শিল্প, ইটভাটা থেকে পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে। ঘরের বাইরে বা ভেতরে দুই পর্যায়ে হচ্ছে ক্ষতি। ঘরের ভেতরে ইলেকট্রনিক পণ্য, ফ্রিজ, ফ্যান, এমন কি বাজারে ব্যবহৃত পলিথিন ঘরে এসে পরিবেশের ক্ষতি করছে। এ ক্ষতি মারাত্মকভাবে শিশুদেরও ওপর পড়ছে। এ ক্ষতি থেকে মুক্তি পেতে আইনি পদক্ষেপ যেমন দরকার, আবার সচেতনতাও দরকার।

শেয়ার করুন

আরো
© All rights reserved © arabbanglatv

Developer Design Host BD