রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:৪৫ পূর্বাহ্ন

ঢামেকে প্রতারকের খপ্পরে নারী, চক্রের দুই সদস্য আটক

আরব-বাংলা রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৩১ মার্চ, ২০২৪ ১০:২৯ am

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে প্রতারক চক্রের খপ্পরে পড়ে বেদানা খাতুন নামে এক নারী সর্বস্ব খুইয়েছেন। এ ঘটনায় প্রতারক চক্রের দুই সদস্য মকবুল ও সুমনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে আনসার সদস্যরা।

শনিবার (৩০ মার্চ) দুপুর ১২টার দিকে হাসপাতালের নতুন ভবনের পানির পাম্পের পাশে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী বেদানা খাতুন বলেন, আমার স্বামী একজন মিস্ত্রি। আমরা আশুলিয়া এলাকায় ভাড়া থাকি। গত মঙ্গলবার দোতলার ছাদ থেকে পড়ে আমার স্বামীর মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙে যায়। তার চিকিৎসা করাতে ওইদিন আমরা ঢাকা মেডিকেলে আসি। বর্তমানে আমার স্বামী ১০২নং ওয়ার্ডে ১৭নং বেডে চিকিৎসাধীন। গতকাল (শনিবার) খাবার পানি নেওয়ার জন্য হাসপাতালের পাম্পের সামনে এসেছিলাম। এমন সময় তিনজন লোক আমাকে পলিথিনে মোড়ানো একটি ব্যাগ দিয়ে বলে আপনি আমার মায়ের মতো। এই ব্যাগটি ধরেন এখানে ১ লাখ টাকা আছে। আমি অর্ধেক টাকা আমার মাকে দিয়ে আসি, আমার মা অসুস্থ হয়ে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি আছে। এ কথা বলে তারা আমার হাতে ব্যাগটি দেন।

তিনি বলেন, এর কিছুক্ষণ পরই তারা আমার ৫ আনা ওজনের কানের দুল, ২ ভরি ওজনের গলার চেইন আমার শরীর থেকে খুলে নেয় এবং সেই সঙ্গে আমার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটিও নিয়ে যায়। আমি তখন অনেকটা মূর্তমানব হয়ে গিয়েছিলাম। তারা কীভাবে আমার কাছ থেকে এগুলো খুলে নিয়ে গেল, আমি কিছুই বুঝতে পারিনি। কিছুক্ষণ পরে হুঁশ এলে দেখি তারা কেটে পড়েছে। দেখি, আমার কানের দুল গলার হার এবং মোবাইল ফোনটিও সাথে নেই।

বেদানা খাতুন বলেন, পরে আমি বিষয়টি হাসপাতালের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আনসার সদস্যদের জানাই। আজ আনসারের একটি টহল দল আমাকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেলের আশপাশে ঘুরতে থাকে। কিছুক্ষণ পরে ওই প্রতারক চক্রের দুইজনকে ১০২নং ওয়ার্ডের একটি গলিতে দেখতে পাই। পরে তাদের আটক করে। এরপর আমাদেরকে ঢাকা মেডিকেলের পুলিশ ক্যাম্পে নেওয়া হয়।

প্রতারক চক্রের সদস্য মকবুল ও সুমন তাদের অপরাধের কথা স্বীকার করে বলেন, এভাবে আমরা প্রতিদিনই ঢাকা মেডিকেলে আমাদের চক্রের সদস্যদের সহযোগিতায় রোগীর স্বজনদের কাছ থেকে কৌশলে তাদের গয়নাগাটি ও মোবাইল হাতিয়ে নিই। আজ আমাদের দুজন ধরা পড়লেও আরেকজন পালিয়ে গেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া জানান, আমাদের আনসার সদস্যরা প্রতারক চক্রের দুজন সদস্যসহ ভুক্তভোগী নারীকে আমাদের ক্যাম্পে নিয়ে আসে। আমরা বিষয়টি শাহবাগ থানাকে জানিয়েছি। তারা এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেবেন।

শেয়ার করুন

আরো
© All rights reserved © arabbanglatv

Developer Design Host BD